Apps

Picture

কমিউনিটি পুলিশিং

কমিউনিটি পুলিশিং কার্যক্রম : "পুলিশই জনতা জনতাই পুলিশ" মূলমন্ত্রের ভিত্তিতেই কমিউনিটি পুলিশিং কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে থাকে বাংলাদেশ গণতান্ত্রিক দেশ এবং জনগণ এই দেশের মালিক সুতরাং জনগণকে সাথে নিয়ে অপরাধ নির্মূলে ভূমিকা রাখা জরুরী কমিউনিটি পুলিশিং হচ্ছে অপরাধ সমস্যা সমাধানে পুলিশ জনগণের যৌথ অংশীদারিত্ব প্রতিষ্ঠার একটি নতুন পুলিশিং দর্শন আমাদের দেশে পুলিশী কর্মকাণ্ডে জনগণের অংশীদারিত্ব প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে কার্যকরভাবে অপরাধ প্রতিরোধের জন্য কমিউনিটি পুলিশিং ধারণা গ্রহণ করা হয়েছে কমিউনিটি পুলিশিং ব্যবস্থায় কমিউনিটির সদস্যগণ, সমাজের বিভিন্ন সরকারি বা বেসরকারি প্রতিষ্ঠান এবং পুলিশের অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে অপরাধ প্রতিরোধ জনগণের জীবনযাত্রার মানোন্নয়নের লক্ষ্যে বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালিত হয় কমিউনিটি পুলিশিং মূলত একটি প্রতিরোধমূলক পুলিশি ব্যবস্থা এই ব্যবস্থায় অপরাধের কারণগুলো অনুসন্ধান করে সেগুলো দূর করার পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয় অপরাধের কারণগুলো দূর করা যেহেতু পুলিশের একার পক্ষে সম্ভব নয় তাই এই কাজে অন্যান্য ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের সাথে অংশীদারিত্ব প্রতিষ্ঠা করা হয় কমিউনিটি পুলিশিং এর যাবতীয় কর্মকাণ্ড অপরাধ প্রতিরোধ তথা অপরাধ যাতে ঘটতে না পারে সেই লক্ষ্যে পরিচালিত হয় কমিউনিটি পুলিশিং ব্যবস্থার মাধ্যমে পুলিশ জনগণকে নিজ নিজ এলাকার অপরাধগুলো প্রতিরোধ করতে পারে তার জন্য আইনী পরামর্শ দেওয়া, অপরাধ সম্পর্কে সচেতন করা, অপরাধকর্ম সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য বা পরামর্শ দেওয়া ইত্যাদির মাধ্যমে ক্ষমতায়ন করে ফৌজদারী কার্যবিধি 42/43 ধারার ভিত্তিতেই কার্যক্রম পরিচালিত হয় 

 

বৈশিষ্ট্য:

  • কমিউনিটি পুলিশিং ব্যবস্থা পুলিশ জনগনের মধ্যে নিয়মিত যোগাযোগ নিশ্চিত করে
  • এটি একটি প্রতিরোধমূলক সমস্যা সমাধানভিত্তিক পুলিশী ব্যবস্থা
  • ব্যবস্থায় জনগণ এলাকার সমস্যা সমস্যার কারণ চিহ্নিত করে তা সমাধানের লক্ষ্যে পুলিশের সাথে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে কাজ করার সুযোগ পায়
  • পুলিশ জনগণের মধ্যে পারস্পরিক আস্থা, সমঝোতা শ্রদ্ধা বৃদ্ধি পায়
  • জনগণের নিকট পুলিশের জবাবদিহিতা নিশ্চিত হয়
  • পুলিশ জনগণের মধ্যে দূরত্ব কমে এবং জনগনের মধ্যে পুলিশ ভীতি অপরাধ
  • হ্রাস পায় এবং জনগণ পুলিশকে সহায়তা করার জন্য উদ্বুদ্ধ হয়
  • জনগণের সহায়তায় পুলিশ নির্দিষ্ট এলাকার সমস্যা সমাধানের কারণ চিহ্নিত করে তা সমাধানের পরিকল্পনা বাস্তবায়নের পদক্ষেপ নিতে পারে
  • জনগণ পুলিশের কাজে সম্পৃক্ত হওয়ার সুযোগ পাওয়ায় জনগণের প্রত্যাশা মতামতের আলোকে পুলিশী সেবা নিশ্চিত করা যায়

কমিউনিটি পুলিশ অফিসারের দায়িত্ব কর্তব্য : থানার সেকেন্ড অফিসার পদাধিকার বলে সিপিও বা কমিউনিটি পুলিশ অফিসারের দায়িত্ব পালন করে থাকেন সিপিও হিসেবে তিনি নিম্নে বর্ণিত দায়িত্ব পালন করে থাকেন

  • দায়িত্বপ্রাপ্ত এলাকার সার্বিক আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখার লক্ষ্যে গঠিত কমিউনিটি পুলিশিং কমিটির স্থানীয় জনসাধারণ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সাথে সু-সম্পর্ক বজায় রেখে অপরাধ দমন করতে হবে এবং  অপরাধের কুফল সম্পর্কে জনসাধারণকে সচেতন করতে হবে
  • থানা এলাকার প্রতিটি বিটে দায়িত্বপ্রাপ্ত সাব-ইন্সপেক্টর উক্ত এলাকার সার্বিক অপরাধ কার্যক্রম নিয়মিত মনিটরিং করছেন কিনা তা তদারকি করবেন এবং অপরাধের কুফল সম্পর্কে জনসাধারণকে সচেতন করবেন
  • উঠান বৈঠকের মাধ্যমে অপরাধের কুফল সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি করবেন
  • বিট পুলিশিং, কমিউনিটি পুলিশিং স্টুডেন্ট কমিউনিটি পুলিশিংয়ের মাধ্যমে যুব সমাজ, শিক্ষার্থী জনসাধারণের মধ্যে সকল অন্যায় অপরাধের কুফল সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি করবেন

সিপিএফ কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের দায়িত্ব কর্তব্য :

  • যেকোন ধরণের অপরাধের বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে থানা পুলিশকে বা বিট এলাকায় দায়িত্বপ্রাপ্ত পুলিশ অফিসারকে সংবাদ দেয়া
  • থানা পুলিশ কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের উদ্যোগে আয়োজিত সকল সভা, সেমিনারে যোগদান করা
  • পুলিশের প্রতি জনগণের আস্থা বৃদ্ধির লক্ষ্যে যেকোন ধরণের কল্যাণমূলক কার্যক্রমে পুলিশকে সম্পৃক্ত করা
  • অপরাধ দমন অপরাধ নিয়ন্ত্রণে পুলিশ এবং কমিউনিটি পুলিশিং ফোরম কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করা
  • মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ, কিশোর অপরাধ প্রতিহত করণ, ইভটিজিং রোধ, বাল্যবিবাহ প্রতিহতকরণসহ নারী শিশুদের প্রতি যেকোন নির্যাতন প্রতিরোধে পুলিশকে প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে সহায়তা করা
  • সন্ত্রাস জঙ্গিবাদ প্রতিহতকরণের লক্ষ্যে পুলিশকে প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে সহায়তা করা
 
Copyright © 2020 Superintendent of police, Barguna. Developed by ICT Section, Barguna Police.